বানান হয়ে ওঠা সময়

প্রজেকশন সিস্টেম এত দুর্বল ছিল যে আমরা আসলে ছবিটা ওভাবে দেখাতে চাইনি — নির্মাতা বিজন ইমতিয়াজ ।।

101
1263 views

প্রজেকশন সিস্টেম এত দুর্বল ছিল যে আমরা আসলে ছবিটা ওভাবে দেখাতে চাইনি — নির্মাতা বিজন ইমতিয়াজ ।।

ঢাকায় রেইনবো ফিল্ম সোসাইটি’র আয়োজনে ১২ জানুয়ারি ২০১৭ থেকে ১৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব চলছে । এই উৎসব চলবে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত । মোট ৯ দিন ।
Dhaka International Film Festival 2017 Posterএবারের উৎসবে ভারত, রাশিয়া, ব্রাজিল, ভেনেজুয়েলা, কিউবা, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, নেপাল, আর্জেন্টিনা, সুইজারল্যান্ড, সাইপ্রাস, জর্জিয়া, ইংল্যান্ড, মিয়ানমার, তুরস্ক, ইরান, তাজিকিস্তান, চিলি, বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৬৭টি দেশের ১৮৮টি চলচ্চিত্র দেখার সুযোগ পাবে দর্শক।

বাংলাদেশ থেকে চূড়ান্ত হয়েছে তিনটি ছবি-তৌকীর আহমেদের ‘অজ্ঞাতনামা’, অমিতাভ রেজার ‘আয়নাবাজি’ এবং বিজন ইমতিয়াজের ‘মাটির প্রজার দেশে’ । এর মধ্যে ‘মাটির প্রজার দেশে’ ছবিটি  দুর্বল প্রজেকশন সিস্টেমের কারণ দেখিয়ে গতকাল পরিচালক  বিজন ইমতিয়াজ উৎসব থেকে প্রত্যাহার করে নেন ।

এই বিষয়ে বানানকে দেয়া ভিডিও সাক্ষাৎকারে বিজন ইমতিয়াজ বলেন– ‘প্রজেকশন সিস্টেম এত দুর্বল ছিল যে আমরা আসলে ছবিটা ওভাবে দেখাতে চাইনি । আমাদের সিনেমার ৪০ ভাগ হচ্ছে রাতের সিন । এবং লো লাইটে করা । এমনও সিন আছে যে শুধু আগুন দিয়ে লাইটিং করা । সেইটা আসলে এই প্রজেকশন সিস্টেমে এবং এই স্ক্রিনে কিছুই দেখা যাচ্ছিল না । প্রথমত আমার মনে হয়েছে এইটা প্রপার প্রজেকশন স্ক্রিন না এবং যেই প্রজেক্টর ইউজ করা হচ্ছে এইটা মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর, এইটা সিনেমা প্রজেক্টর না । স্ক্রিন খুব ছোট ছিল । অডিয়েনসের অর্ধেক হলে যারা সাইটে বসত তারা আসলে কিছুই দেখতে পারত না ( ৫ মিনিটের বাকি সাক্ষাৎকার ভিডিওতে দেখার অনুরোধ রইল)।’

এত কষ্ট করে নানান দেশ থেকে ছবি এনে উৎসব করা অনেক পরিশ্রমের কাজ । নির্মাণও তেমন । আরো কষ্টের হয়ত । সেখানে যদি প্রজেকশন কোয়ালিটি ভাল না হয় সিরিয়াস নির্মাতারা আগ্রহ হারাবেন উৎসবে নিজেদের ছবি দেখাতে।শব্দ-ছবির ঠিক ঠিক প্রজেকশন না হলে অনেক সময় ছবির গল্প দর্শকের সাথে কমিউনিকেশনে গ্যাপ তৈয়ার করে । ফলে নির্মাতা বিজন ইমতিয়াজের এই প্রত্যাহার সিদ্ধান্ত উৎসব আয়োজকদের ভবিষ্যতে আরো বেটার প্রজেকশন সিস্টেমের কথা ভাবাবে হয়ত।



জাতীয় জাদুঘর, সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তন, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ, আমেরিকান সেন্টার মিলনায়তন ও স্টার সিনেপ্লেক্সের পাঁচটি ভেন্যুতে চলবে এ উৎসব।

স্টার সিনেপ্লেক্স ছাড়া অন্যান্য ভেন্যুতে ৩০ টাকা দর্শনীর বিনিময়ে দেশ-বিদেশের বৈচিত্র্যময় বিষয়ের ওপর নির্মিত বৈচিত্র্যময় সব সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন দর্শকরা।

 ছবি দেখার এ বিশাল আয়োজনের অন্যতম আকর্ষণ রেট্রোস্পেক্টিভ বিভাগে প্রদর্শিত হবে ইরানি নির্মাতা আব্বাস কিওরোস্তামি এবং তুরস্কের নারী নির্মাতা ইয়াসিম ইয়াস্তাওগলু নির্মিত পাঁচটি করে ছবি।

এছাড়া সাতটি বিভাগে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। বিভাগগুলো হলো এশিয়ান কমপিটিশন, সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড সেকশন, চিলড্রেনস ফিল্ম সেকশন, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস, উইমেন ফিল্ম মেকার সেকশন, শর্ট অ্যান্ড ইনডিপেনডেন্ট ফিল্ম সেকশন ও নরডিক ফিল্ম সেকশন।

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের সহযোগিতায় চলচ্চিত্রে নারী বিষয়ক তৃতীয় ঢাকা আন্তর্জাতিক সম্মেলন হবে।

উৎসবের অংশ হিসেবে প্রথমবারের একটি চিত্রকর্ম প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। ধানমন্ডির শিল্পাঙ্গন আর্ট গ্যালারিতে ইরানি চিত্রশিল্পী সারাহ হোজ্জাতির আঁকা ছবি দিয়ে সাজানো প্রদর্শনীটি চলবে ৭ থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত।



১৯৯২ সাল থেকে রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করে আসছে।

 

 


You Might Be Interested In

LEAVE A COMMENT