বানান হয়ে ওঠা সময়

‘সিনেমা কারখানা’ কথাটা আমি ভাবনা, দর্শন, অনুভব এগুলার একটা পরিক্ষেত্র-লীলাক্ষেত্র হিসাবে বলছি – মানস চৌধুরী ।।

101
1548 views

“বিড়ালপাখি সিনে ক্লাব”  ঢাকায় আর্টকালচার বিশেষ করে সিনেমা নিয়া যারা আগ্রহী তাঁদের নজর টেনেছেন । এইটানে আমরাও গিয়ে হাজির হলাম ‘বিড়ালপাখি মজমার ৮.০’ পর্বে ।

মূলত সিনেমা নিয়ে কাজ করেন এই মজমা । সিনেমার বিশেষ করে ঢাকার সিনেমার নতুন ভাষার সন্ধান তাঁদের চর্চার একটা দিক । সিনেমা নিয়ে যারা কাজ করেন, ভাবেন, নানান ভাবে তৎপর তাঁদের পরস্পরের একটা নেটওয়ার্ক গড়ে উঠক মজমা’র চর্চার মধ্যে এমন বাসনাও হাজির । ফলে ‘ওপেন সিনেমা, ওপেন বয়ান, ওপেন মাইক’ তাঁদের প্রচারে এমন আওয়াজ জারি রেখে এই পর্যন্ত তাঁরা ধারবাহিক ভাবে সিনেমা নির্মাণের নানান দিক ( নির্মাতা, সিনেমাটোগ্রাফার, এডিটর, সাউন্ড) মাথায় রেখে বয়ান-আলাপ-আড্ডা, নিজেদের সিনেমা বানানো, দেখা-দেখি, তর্ক ইত্যাদি যজ্ঞ আয়োজন করে যাচ্ছেন । নিজেদের নির্মাণ শ্রমিক বলতে পছন্দ করেন তাঁরা।

মজমার মূল সংগঠক  নির্মাতা ইশতিয়াক জিকো’র ভাষায় “বিড়ালপাখি সিনে ক্লাব থেকে এই অনুষ্ঠানের একটা উদ্দেশ্য হচ্ছে, আমাদের সিনেমা নিয়ে যারা ভাবেন, কাজ করেন, শ্রম দেন; তাদেরকে একটা প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসা । এইখানে যারা আসেন তাঁদের সাথে যাদের সিনেমা নিয়ে আরো অনেক অভিজ্ঞতা আছে, ভাবনা-চিন্তার একটা স্তর পর্যন্ত পৌঁছে গেছেন বা কাজ করছেন, তাঁদের সাথে যোগাযোগটা করা এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ।”

প্রতি মাসের মত এইবারও ‘বিড়ালপাখি মজমার ৮.০’ আয়োজন তিন পর্বে ভাগ করা ছিল । প্রথম পর্বে সিনেমা নিয়ে ওপেন বয়ান “সিনেমা কারখানা” শিরোনামে বয়ানকারী ছিলেন ড. মানস চৌধুরী । তারপর খানিক বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্বে শুরু হয় ১ মাস আগে নিজেদের পূর্বনির্ধারিত থিম ( এইবারের থিম ছিল ‘যাওয়া কিংবা আসার কালে’) নিয়ে সিনে ক্লাবের মেম্বারদের বানানো ৬ টি ছবি দেখা । তৃতীয় পর্বে ছবি এবং ওপেন বয়ানের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন-তর্ক-আড্ডা-আলাপ ।

বানান ভিডিওতে ধারণ করা “সিনেমা কারখানা” শিরোনামে মানস চৌধুরীর পুরো বয়ানটা এখানে প্রচার করছে ।

@ বানানে ব্যবহার করা ছবিগুলো মেহেদী হাসানের তোলা । আমরা তাঁর ফেইসবুক পেইজ থেকে নিয়েছি ।

# নিচের লিঙ্কগুলোতে বিড়ালপাখি নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে পারবেন ।


You Might Be Interested In

LEAVE A COMMENT